শনি. জুন 25th, 2022

অনেক সমস্যারই দ্বিপক্ষীয় সমাধান সম্ভব: প্রধানমন্ত্রী

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর প্রধান শত্রু ‘দারিদ্র্য’ উল্লেখ করে এর বিমোচনে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সাউথ এশিয়ান অ্যাসোসিয়েশন ফর রিজিওনাল কোঅপারেশনের (সার্ক) মহাসচিব এসালা রুয়ান ভিরাকুনের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এই আহ্বান জানানোর পাশাপাশি কোথাও সমস্যা হলে দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় সমাধানে জোর দেন।

সারক মহাসচিব সস্ত্রীক রোববার সৌজন্য সাক্ষাতে গণভবনে যান বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর প্রধান শত্রু দারিদ্র্য। সুতরাং দারিদ্র্য বিমোচনে সকলকে এক সঙ্গে কাজ করতে হবে। এই অঞ্চলের দেশগুলোর একে অপরের সঙ্গে সহযোগিতা করা উচিৎ। অনেক সমস্যাই দ্বিপক্ষীয়ভাবে সমাধান হতে পারে।”

এসালা রুয়ান ভিরাকুনকে শেখ হাসিনা বলেন মুক্তিযুদ্ধের পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার কলকাতা সফরে ‘আঞ্চলিক সহযোগিতার’ কথা বলেছিলেন।

এ সময় ‘সার্ক ফুড ব্যাংক’ কে শক্তিশালী করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন সার্ক মহাসচিব। এছাড়া সার্ক এগ্রিকালচার সেন্টারে অবদান রাখার জন্য তিনি বাংলাদেশের প্রশংসাও করেন।

শ্রীলঙ্কার নাগরিক এসালা রুয়ান ভিরাকুন তার দেশের চলমান অর্থনৈতিক সঙ্কটের জন্য কোভিড মহামারীকে দায়ী করেন। তিনি শ্রীলঙ্কার পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসাও করেন।

তার দেশে ধানের উৎপাদন ৫০ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে জানিয়ে এলাসা রুয়ান বলেন, এখন শ্রীলঙ্কার সার প্রয়োজন।

প্রধানমন্ত্রী জানান, কোভিড মহামারী এবং রাশিয়া-ইউক্রেইন যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে তার সরকার খাদ্য উৎপাদনে পদক্ষেপ নিয়েছে। এসময় লবণাক্ততা, খরা-বন্যা সহিষ্ণু ধানের জাত উদ্ভাবনে বাংলাদেশি গবেষকদের প্রচেষ্টার কথাও উল্লেখ করেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অ্যাম্বাসেডর-অ্যাট-লার্জ মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া।