শনি. জুন 19th, 2021

পুরান ঢাকার আরও একশ ভবন অবরুদ্ধ

আইইডিসিআর বৃহস্পতিবার নতুন ১১২ রোগী শনাক্তের কথা জানানোর পর পুলিশ এসব বাড়ি অবরুদ্ধ করার পদক্ষেপ নেয়।

নতুন সংক্রমিত এই রোগীদের বেশিরভাগই ঢাকার। বাংলাদেশে এই পর্যন্ত যে ৩৩০ জন কোভিড-১৯ রোগী ধরা পড়েছে, তারও বেশির ভাগ রাজধানীর।

বংশাল থানার ওসি শাহীন ফকির বলেন, আলী নেকীর দেউরীতে একজন নভেল করোনাভাইরাসের রোগী পাওয়া গেছে। তাই ওই এলাকায় ১২টি ভবন লকডাউন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “বুধবার একটি মসজিদ কমিটির লোক নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার একই এলাকায় ৯টি ভবন লকডাউন করা হয়েছিল। ওই এলাকায় বর্তমানে ২১টি ভবন লকডাউনে রয়েছে।”

বংশাল রোডে একজন রোগী শনাক্ত হওয়ায় ২০টি ভবন লকডাউন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

টেকের হাট এলাকায় এক দম্পতি আক্রান্ত হওয়ায় ওই এলাকায় ৫০টি ভবন লকডাউন করা হয়েছে বলেও জানান শাহীন ফকির।

এদিকে লালবাগ রোডে বৃহস্পতিবার আরও এক ব্যক্তির শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ায় লালবাগ রোডের ছাড়া মসজিদ এলাকার পাঁচটি ভবন লকডাউন করা হয়েছে বলে জানান লালবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আসলাম উদ্দিন।

চকবাজার থানার ওসি মওদুত হাওলাদার বলেন, নভেল করোনাভাইরাসের আক্রান্ত খাজে দেওয়ান লেনের ৫২ বছর বয়সী একজন মারা গেছেন। তার আগে একই লেনের আরও একজন মারা গিয়েছিলেন।

ওই লেনে আরও দুজন করোনাভাইরাসের রোগী রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ওই লেনের প্রায় দুইশ বাড়ি আগে থেকে লকড ডাউন।

ওয়াটার ওয়ার্কস রোডে একজন করোনাভাইরাসের রোগী পাওয়া যাওয়ায় নতুন করে ৩টি ভবন লকডাউন করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা মওদুত