বুধ. ফেব্রু. 28th, 2024

রংপুরের পীরগঞ্জে বাস ডাকাতির ঘটনায় পাঁচ ডাকাত গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার রংপুর
রংপুরের পীরগঞ্জে বাস ডাকাতির ঘটনায় পাঁচ ডাকাতকে গ্রেফতার ও ডাকাতির মালামাল উদ্ধারূ করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে পীরগঞ্জ থানায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাজিয়া সুলতানা।গ্রেফতার হওয়া ডাকাতরা হলেন জেলার পীরগঞ্জের আগাচতরা গ্রামের ফিরোজ মিয়া (২৮), জয়পুর গ্রামের মেহেদী হাসান (২৫), বড় আলমপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলী (৩৮), বড় গোপীনাথপুর গ্রামের শাহজাহান আলী (৩০) এবং ডাকাতির ঘটনায় লুষ্ঠিত স্বর্ণ ক্রয়কারী চতরা গ্রামের মনোয়ার হোসেন মজিন (৩৮)।
পুলিশ জানায় ,সোমবার (১৫ ডিসেম্বর) রাতে রংপুরের পীরগঞ্জ এবং গাইবান্ধার পলাশবাড়ি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ৬টি ধারালো চাকু, ৩টি স্মার্ট ফোন এবং ডাকাতদের ব্যবহৃত ৫টি বাটন ফোন ও লুট করা স্বর্ণের সাদৃশ একজোড়া কানের দুল উদ্ধার করা হয়।
জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাজিয়া সুলতানা জানান, ডাকাতদল গত ১২ জানুয়ারি রাত নয়টার দিকে গাজীপুর জেলার চান্দুরা বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী হিসেবে ছদ্মবেশে ওঠে। এরপর রাত একটার দিকে  বগুড়া জেলার শেরপুর ফুড ভিলেজে যাত্রা বিরতির সময় পরিকল্পনা অনুযায়ী আন্তজেলা বাস ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য ফিরোজ, মেহেদী, মোহাম্মদ আলী এবংশাহজাহান আলী সহ তাদের সহযোগী আরও চারজন  প্রত্যেকে একটি করে ধারালো চাকু নিজ হেফাজতে রাখে এবং তারা ডাকাতির সুযোগ খুঁজতে থাকে।একপর্যায়ে রাত সাড়ে তিনটার দিকে পীরগঞ্জ থানাধীন লালদিঘী ওভার ব্রিজ পার হয়ে ডাকাত দলের সদস্যারা বাসের ড্রাইভার, হেলপার, সুপারভাইজার সহ বাস যাত্রীদের ধারালো চাকুর ভয় দেখিয়ে জিম্মি করে এবং বাস তাদের নিয়ন্ত্রণে নেয়। এসময় ডাকাতরা ভয়ভীতি দেখিয়ে ৮ টি স্মার্ট ফোন, বাটন ফোন ৮/১০ টি, নগদ ৪২ হাজার টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে বাস থেকে নেমে যায়।এ ঘটনায় সোমবার পীরগঞ্জ থানায় ডাকাতির মামলা দায়ের করা হয়।পরবর্তীতে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে তাদের গ্রেফতার করে।গ্রেফতার কৃতরা আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।পলাতক ডাকাত সদস্যদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে পীরগঞ্জ থানা পুলিশ আটকদের ব্যাপারে সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন জেলা পুলিশ সুপার ফেরদৌস আলী চৌধুরী।